COVID-19 এর ভাইরাস SARS-CoV-2 এর উৎস কোথা থেকে? কিছু গবেষণামূলক তথ্য।

আমরা সবাই COVID-19 এবং ভাইরাসজনিত সংক্রমণ সম্পর্কে মোটামুটি কয়েক দিনে অনেক কিছু জানলাম। সারস-কোভিড -2 নিয়ে এই COVID-19। তবে অনেক গুঞ্জনও উঠেছে। এবং এই ভাইরাস সম্পর্কিত বৈজ্ঞানিক নিবন্ধের সংখ্যা যখন বাড়ছে, এখনও এর উৎস হিসাবে অনেক ধোয়াসা রয়েছে।

কোন প্রাণীর থেকে এটি এসেছে? বাদুর, না পাঙ্গোলিন না অন্য কোন বন্য প্রজাতি? যার থেকে এটি এসেছে? চীনের হুবেই প্রদেশ এর কোনো গুহা বা বন থেকে, না অন্য কোথা থেকে?ডিসেম্বর 2019 এ, হাসপাতালে ভর্তি হওয়া প্রথম 41 জনের মধ্যে 27 জন হুবেই প্রদেশের উহান শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত একটি বাজারের মধ্যে গিয়েছিল। তবে, উহান হাসপাতালে পরিচালিত একটি গবেষণা অনুসারে, চিহ্নিত প্রথম মানব ঘটনাটি এই বাজারে কখনোই আসে নি। পরিবর্তে, সারস-কোভি -২ জিনোমিক সিকোয়েন্সগুলির মোলেকুলার ডেটিং (molecular dating) উপর ভিত্তি করে অনুমান করা যায় নভেম্বরে এর সূত্রপাত হয়েছিল। এটি এই COVID-19 মহামারী এবং বন্যজীবনের মধ্যে লিঙ্ক সম্পর্কে প্রশ্ন উত্থাপন করে।

জিনোমিক ডাটা নিয়ে কিছু তথ্য

SARS-CoV-2 জিনোমটি চীনা গবেষকরা দ্রুত ক্রমানুসারে তৈরি করেছিলেন। এটি 15 টি জিনযুক্ত প্রায় 30,000 base এর একটি আরএনএ অণু সঙ্গে S জিন যা ভাইরাসের খোলসের পৃষ্ঠে অবস্থিত একটি প্রোটিনের কোড করে (আমাদের জিনোম প্রায় 300 কোটি base ডিএনএর দ্বৈত হেলিক্স আকারে হয় এবং প্রায় 30,000 জিন থাকে)।

DNA থেকে RNA সৃষ্টি হওয়ার ভিডিও, যাকে transcription বলে। ভাইরাস, DNA অথবা RNA উভয় প্রকার হয়।

তুলনামূলক জিনোমিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে যে SARS-CoV – 2 বিটাকরোনাভাইরাস গ্রুপের সাথে সম্পর্কিত এবং এটি সারস-কোভের খুব কাছাকাছি, তীব্র নিউমোনিয়ার মহামারীর জন্য দায়ী, যা নভেম্বর 2002 সালে চীনা প্রদেশ গুয়াংডংয়ে প্রকাশিত হয়েছিল এবং পরে এটি 2003 সালে 29 টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছিল। 8098 জনের সংক্রমণ সহ 774 জনের মৃত্যু হয়েছিল। জানা যায় যে রাইনোলোফাস (গুহাতে বসবাসকারী প্রজাতি) বংশের বাদুড়গুলি এই ভাইরাসের উৎস ছিল এবং এটি ছিল একটি ছোট মাংশাসী প্রানী, পাম সিভেট (প্যাগুমা লার্ভাটা), এর সংস্পর্শে সম্ভবত প্রথম মানুষের শরীরে প্রবেশের ক্ষেত্রে মধ্যবর্তী হোস্ট হিসাবে কাজ করেছিল।

সেই থেকে, অনেকগুলি বিটাকরোনাভাইরাস আবিস্কৃত হয়েছিল, প্রধানত বাদুড়ের শরীরে, এবং মানুষের শরীরেও। উদাহরণস্বরূপ, চীনের ইউনান প্রদেশে সংগৃহীত প্রজাতি রাইনোলোফাস অ্যাফিনিস থেকে সম্প্রতি যে RaTG13 জিনোমটি আবিষ্কৃত হয়েছে তা SARS-CoV – 2 এর মতই  (জিনোম সিকোয়েন্সগুলির সাথে 96% মিল পাওয়া গেছে) । এর থেকে এটা পরিষ্কার যে বাদুড়, বিশেষত রাইনোলোফাস প্রজাতির বাদুড়গুলি SARS-CoV এবং SARS-CoV-2 ভাইরাসের গুদামঘর।

করোনা ভাইরাস outbreak

করোনা ভাইরাসের ক্ষেত্রেও একই রকম রিকম্বিনেশন হয়েছে (see mutation, recombinant DNA technology ) এটা জেনে রাখা দরকার যে পুনরায় সমন্বয়ের (recombination) ফলে একটি নতুন ভাইরাস সৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে যা একটি নতুন হোস্ট প্রজাতি সংক্রমণে সক্ষম। mutation ঘটতে, দুটি ডাইভারজেন্ট ভাইরাসকে অবশ্যই একই জীবকে একই সাথে সংক্রামিত করেছিল।

প্রশ্ন এখোনো থেকেই গেছে যে কোন জীবের মধ্যে এই রিকম্বিনেশন ঘটে, একটা বাদুড় আর একটা প্যাঙ্গোলিন না অন্য কোনো প্রজাতি? আর কিরকম কন্ডিশনে এই রিকম্বিনেশন ঘটেছিল? 

Courtesy: Alexandre Hassanin (MNHN) 

Share this:

Leave a comment