Categories
ABORIGIN Uncategorized ভাষা - কামতাপুরী / রাজবংশী

এ কেমন আন্দোলন যা একে সমাজের মানষির ভিতরা বিভেদ সৃষ্টি করে ?

তোমরা বাহে কোচ না কুচ না রাজবংশী না রাজবংশী ক্ষত্রিয় না কোচ/কুচ রাজবংশী এইটা বড় কথা নোমায়। বড় কথা হৈল্ তোমার ভাষা কি, তোমার কৃষ্টি কি, তোমার সংস্কৃতি কি, তোমরা কদ্দুর তা পালন করিচেন বা ধরি থাকি বিশ্বর কাছত তোমার পরিচয় দিবার পাইচেন? আর তার থাকিয়াও বড় কথা হৈল্ তোমার বিচরণ ক্ষেত্র কি মানে কোন জাগাত তোমরা তোমার নিজের মতন করি রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নিবার পান যা গোটায় সমাজক চালনা করিবে?

বাহে তোমরা 80 বছর থাকি কিছুই করেন নাই খালি বড় বড় পার্টির (মরিচিকার) পাছিলাত দৌড়াইচেন আর জাতি গঠনের, সমাজ গঠনের দিবা স্বপ্ন দেখিচেন। আসলে তোমরা যে কয়জন দিবা স্বপ্ন দেখিচেন স্বাধীনতার পরবর্তী সমায় থাকি সৌগ নিজের ব্যক্তিগত উন্নতি সাধনের জন্যে। সেলা করি খাবার পাইচেন কারণ বেশীর ভাগ মানষি ছিল পুঁথি গত অশিক্ষিত বা অর্ধশিক্ষিত। সহজ সরল জীবন ছিল, রাজনীতি অর্থনীতি খুব এখনা প্রাধান্য পায় নাই। অন্য মানষির কথাত নিজের ভাষা কৃষ্টি সংস্কৃতির মানষিক ভাগ করার চেষ্টা করিচেন যাতে ব্যক্তিগত কিছু সুবিধা পাওয়া যায়। কি জাতি গঠন করিচেন যে 80-90 বছর পরেও তোমরা তোমার পরিচিতি পাবার জন্যে যুয্য নাগাইচেন যে তোমরা কোচ না কুচ না xyz? তারমানে নিশ্চয় কোনো না কোনো ভুল ত্রুটি, বিচ্যুতি আছে যে জিনিসটা তোমরা খুঁজির চেষ্টা করেন না। অথচ নিজের ব্যক্তিগত মতামত সমাজের গোটায় মানষির উপরা চাপে দেওয়ার মিছাং চেষ্টা করেন। মানষির মনত পোশনো তুলি দ্যান আসলে তোমরা কায়, ইমরা কায় আর ফল্লা কায়।

ইতিহাসের পাতাত এলাও জ্বলজ্বল করি আছে। মধ্যযুগের মোচরমান লেখকলার দায় পড়ে নাই নাম ভারি অন্য নাম দিয়া বই ল্যাখা। প্রশস্তি যায় যায় লেখিচে সৌগ প্রতিষ্ঠিত দেশের ইতিহাসত। কিন্তুক সেইটা সমাজের মানষি জানির পায়নাই এলাও। কোনো চেষ্টাও করেন নাই যাতে মানষি জানির পায়। কি উদ্দেশ্যে? নাকি ওলা ইতিহাস নোমায়, হামার ল্যাখা ইতিহাস (?) পড়ো যার সাথত মাটির কোনো সম্বন্ধ থাকে না।
আকবর নামা
বাহারিস্তান ঘাইবি
তবকত ই নাসিরি
1847 সনের হজসন, 1884 সনের জেমস ওয়াইস, এইলা কুল্লায় ভুল তোমারটায় ঠিক??

প্রতিষ্ঠিত ইতিহাস একপাকে দৌড়ায় আর তোমার ইতিহাস (?) আর একপাকে দৌড়ায় । ঐতিহাসিক লা একনাকান ইতিহাস ল্যাখে ডাটা দিয়া আর তোমরা ইতিহাস ল্যাখেন গাওয়ের জোরে। আসলে মনে হয় মানষি যত শিক্ষিত হবার ধৈরচে, পুরানা বই ঘাটাঘাটি করি ইতিহাস পড়ির ধৈরচে, নিজের জাগার ইতিহাস, ভাষা ও কৃষ্টি জানির ধৈরচে ততই তোমারলার অসুবিধা হবার ধৈরচে। আপামর মানষি মাটির সাথত চলি কৃষ্টি সংস্কৃতি চর্চা করার চেষ্টা করে তোমরালা নয়া নয়া তত্ত্ব নিয়া কালচার করেন যার সাথত মাটির কোনো সম্পর্ক নাই।

আপামর জনসাধারণক চরেয়া খাওয়া যায় কয়েকদশক কিন্তুক যুগ যুগ ধরি সম্ভব নাহয়। মানষিক মাইথোলজি নাহয় ইতিহাস পড়ান এইটায় কাজে নাগিবে।

# মুই যেদু ভুল না হং, হয়ত বর্তমান সমাজের বেশীরভাগ মানষি এলাও আন্দোলনের নামও শোনে নাই।

©🆚

View All Postsআপনিও পোস্ট করুনAdvertise your Product or Service
Share this:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

309 Views