তুফানগঞ্জের মানষি এলাও নিন্দত আছে।

তুফানগঞ্জত ভুমিপুত্রর ইতিহাস নিয়া টানাটানি হবার ধৈরচে। বীর চিলারায়ের মূর্তির উপরা কিছু দেশী বিদ্বেষী মানষি আক্রমণ করিলেক। বিগত 70 বছর ধরি ভাষা ইতিহাস সংস্কৃতি ধ্বংস করিতে করিতে আজি ভুমিপুত্র কোনঠাসা হয়া গেইচে, নিজের আইডেন্টিটি ক্রাইসিসত পড়িচে। মানষি নিজে কায়, নিজের ইতিহাস কি, সংস্কৃতি কি, মাওয়ের ভাষা কি ঐটায় জানে না। ত্যাংও মানষি বহিরাগত রাজনীতিতে মাতি উঠিচে। এই বহিরাগত রাজনীতিই যে উমার আইডেন্টিটি ক্রাইসিসের মূল কারন ওটা আর বোধ পাবার ধৈরচে না।

বীর চিলারায়ের মূর্তি ভাঙার প্রতিবাদ করির জন্যে দিনহাটা, আলিপুরদুয়ার, কুচবিহার, জলপাইগুড়ি আরো দূরদূরান্তর থাকি মানষি চিলারাজার গড়ত হাজির হৈচিল। যত মানষি হাজির হৈচিল তার বেশীরভাগে তুফানগঞ্জের বায়রা থাকি। আর তুফানগঞ্জের শহর কন আর গেরামে কন বেশীর ভাগ মানষি তৃণমূল আর বিজেপির পাছিলাত সময় নষ্ট করির ধৈরচে। স্বাধীনতার 70 বছর পরেও তুফানগঞ্জের মানষির হুশ ফিরিলেক না যে এইসকল চালানী রাজনীতি মরুভূমির মরিচীকা ছাড়া কিছুই নোমায়।

বামফ্রন্ট আমলত তুফানগঞ্জের দড়িয়াবালাইত কিছু নিরীহ ভুমিপুত্রক লাল পার্টির ক্যাডার ডাঙাইচিল। এমনও নাহয় যে নিরীহ ভুমিপুত্রলা বিরোধী পার্টি করিচে। উমার একটায় দোষ ছিল যে উমরা নিজের স্বত্বাক ধরি রাখার চেষ্টা করছিল। সেই সমায়ও লাল পার্টি করা দেশী নেতালা চখু মুজি ছিল আর যায় ডাঙাইচে তাকে সমর্থন করছিল। লাল পার্টির ক্যাডারলা যে একটাও দেশী ছিলনা সগায় জানে।

ভাটিবাড়ির ঘটনা তো সগায় জানে। ময়নার চখুর জল যাত্রা পালাত লাল ক্যাডার প্রশাসনক সাথত নিয়া নির্বিচারে ডাঙে যাত্রা ভঙ্গ করি দিচিল। ডাঙের চোটে একজন না দুইজন মারাও গেচিল। প্রশাসন কি আদৌ ব্যবস্থা নিছিল? কবার পাইবে ভুমিপুত্র লাল পার্টি করা মানষিলা? কিছুই হয়নাই কারো।

বীর চিলারায়ের (Vir Chilaray) মূর্তি ভাঙা দিয়া সেই ঘটনার সূত্রপাত হৈল্ কওয়া যায়। কাজেই তুফানগঞ্জ বাসী নিন্দত না রন। চালানী রাজনীতি করিলেও নিজের স্বাভিমান, নিজের স্বত্বা, নিজের ভাষা কৃষ্টি সংস্কৃতিক জলান্জলি নাদেন।
চালানী রাজনীতি বঙ্গবন্ধুলার জন্যে ফিট ওটা উমরা ভালোই বোঝে, কারন উমার হারানোর কিছু নাই। উমার দেহা এত্তি থাকিলেও আত্মা অন্য জাগাত থাকে। যে জাগাত থাকে সেই জাগার ভাষা কৃষ্টি সংস্কৃতি ইতিহাস ধ্বংস হৈলেও উমার যায় আইসেনা।
কাজেই জাগো ভুমিপুত্র জাগো।

Author: Krisna Kanta

Leave a Comment

Your email address will not be published.