An account of Jateshwar Shiva Temple – Promising Dooars Tourism prospects.

Jateshwar is a small village of Falakata block of Alipurduar district, approx 13 km north-west from Falakata town. Jateshwar is focused area like other developed country side. Near Jateshwar market there is an old Shiva Mandir (temple) which is very much known to people of entire North East India and West Bengal. So many devotees

দেবী কামাখ্যা মন্দিরের ইতিহাস এবং কুচবিহার রাজবংশ।

জয় মা কামাখ্যা দেবী কামাখ্যার অম্বুবাচী তিথি উপলক্ষে কামাখ্যা মন্দির তিন দিন বন্ধ থাকবে। মন্দিরের দ্বার খুলে স্নান, পূজাদি সম্পন্ন করা হবে চতুর্থ দিনে। সকলকে পবিত্র অম্বুবাচীর শুভেচ্ছা জানাই। কামাখ্যা মন্দির (Kamakhya Temple)  হল ভারতের আসাম রাজ্যের গুয়াহাটি  (Guwahati) শহরের পশ্চিমাংশে নীলাচল পর্বতে অবস্থিত হিন্দু দেবী কামাখ্যার একটি মন্দির। এটি ৫১ সতীপীঠের অন্যতম। ৫১টি শক্তি

Dooars package tour idea – Northeast India

Dooars is located on the foothills of eastern Himalaya range in Northeast India. The entire districts like Alipurduar, Coochbehar, Jalpaiguri and Darjeeling fall under the Dooars region (North Bengal). We can visit Dooars at any time of the year but September to May is the best time to visit Dooars. During hot summer season, the

কুচবিহার রাজবংশের পরিচিতি।

কুচবিহার বা কোচবিহার রাজবংশের পরিচিতি খেন রাজবংশের পর বিভিন্ন গ্রামে ভূঁইয়া গণ স্বাধীনভাবে নিজ নিজ অঞ্চলে প্রভুত্ব করতেন। এই সময়ে মেচ দলপতি হরিদাস মণ্ডল বা হারিয়া মন্ডল নামে এক মেচ সর্দার অত্যন্ত প্রভাবশালী হয়ে ওঠেন। কোচ নায়ক হাজোর হীরা ও জিরা নামক দুই কন্যার বিয়ে হয় মেচ যুব হাড়িয়া মন্ডল এর সঙ্গে। হরিদাস মন্ডল গোয়ালপাড়া জেলার

কুচবিহারের গর্ব ঐতিহাসিক ল্যান্সডাউন হল।

দীর্ঘ প্রায় পাঁচ শত বছরের কোচ  রাজত্বে স্থাপত্যকলার নিদর্শন রূপে কুচবিহার সমগ্র ভারতে অনন্যতার  দাবী রাখে। অতীত ইতিহাস পর্যালোচনা করে পুরাতত্ত্বের দৃষ্টিভঙ্গিতে যদি দেখি, কুচবিহার যে খুব সমৃদ্ধ এ বিষয়ে কারও কোন সন্দেহ নেই। কিন্তু দুঃখের বিষয় যে, একদা এই সুবিশাল সাম্রাজ্যের স্থাপত্য ও পুরাকীর্তি ইত্যাদি সংরক্ষণের জন্য আজও সরকারি বা বেসরকারি কোনো সংগ্রহশালা গড়ে

মহারাজা নৃপেন্দ্র নারায়ণ ভুপ বাহাদুর ও তাঁর কর্মকান্ড।

আধুনিক কুচবিহারের স্রষ্টা মহারাজা নৃপেন্দ্র নারায়ণ ভুপ বাহাদুর পাঁচশত বছরের কোচ রাজত্বের ইতিহাসে দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন তার মহতী কাজের মাধ্যমে। শাসকের আচার-আচরণের  উপর নির্ভর করে রাজ্যের প্রজা মঙ্গলের উন্নতি। প্রজা- হিতৈষী বিদ্যোৎসাহী, সুগভীর কর্তব্যনিষ্ঠ, স্নেহ পরায়ণ এবং  পাশ্চাত্য শিক্ষা ও ভাবনায় কুচবিহার রাজ্যের সর্ববিধ উন্নতি তিনি করেছিলেন। তার আমলে কুচবিহার রাজ্যে উন্নয়নের জোয়ার আসে। তিনি

কুচবিহারের রাজকুমার গৌতম নারায়ণ ও ইন্দ্রজিতেন্দ্র নারায়ণ।

কুচবিহার রাজকুমারদের কথা (পূর্ব প্রকাশিতের পর) লিখেছেন – কুমার মৃদুল নারায়ণ মহারাজকুমার গৌতম নারায়ণ মহারাজা নৃপেন্দ্র নারায়ণের পৌত্র এবং মহারাজকুমার ভিক্টর নিত‍্যেন্দ্র নারায়ণের কনিষ্ঠ পুত্র রাজকুমার গৌতম নারায়ণ জন্মগ্রহণ করেন কলকাতায় ১৯১৮খ্রিস্টাব্দের আগস্ট মাসে। ছোট ছেলে গৌতম নারায়ণকে অল্প বয়সেই লেখাপড়ার জন‍্য বিলেতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। ইংল্যান্ডে পাঠ‍্যকালে ট্রিনিটি কলেজের ক্রিকেট টিমের নিয়মিত খেলোয়াড় ছিলেন

কুচবিহার রাজকুমারদের কথা।

ঐতিহাসিকগণ কোনো রাজ্য বা রাষ্ট্রের ইতিহাস লিখতে গিয়ে কেবলমাত্র রাজা-মহারাজাদের কথাই় জনসমক্ষে তুলে ধরেন, কিন্তু রাজা-মহারাজাদের এই সাফল্যের পথে অনেক ক্ষেত্রেই রাজকুমারদের বিশেষ ভূমিকা থাকে। কুচবিহার রাজ পরিবারের  সাহিত্য, সংস্কৃতি, ক্রীড়াচর্চার অন্যতম  সার্থক  পুরুষ  মহারাজকুমার নিত্যেন্দ্র নারায়ন ও মহারাজকুমার হিতেন্দ্র নারায়ণ। কুচবিহারের ঐতিহ্য সংরক্ষণে মহারাজকুমারগন ছিলেন সক্রিয়। এ কারণেই তারা রাজ্যের বিদ্যোৎসমাজের আপনজন ছিলেন। কুচবিহার

রাজন্য শাসিত কুচবিহারের পদ ও পদবী।

যতো ধর্ম, স্ততো জয়।। Where There is Virtue, There is Victory রাজন্য শাসিত কুচবিহারের পদ ও পদবী লেখক: কুমার মৃদুল নারায়ণ কুচবিহার নামটি এখন একটি জেলার পরিচয় দান করে। কিন্তু এই নামটির সঙ্গে জড়িত আছে প্রাচীন সাম্রাজ্যের স্মৃতি-করদ মিত্র রাজ্যের ছায়া তথা আন্তর্জাতিক প্রভাব। আর আছে ইতিহাসের বিচিত্র ঘটনা আর গতি। এই ধারায় কুচবিহার বিবর্তিত

কুচবিহারের রাজকুমারীদের কথা।

কুচবিহারের রাজকুমারীদের কথা। লিখেছেন: কুমার মৃদুল নারায়ন কুচবিহারের রাজকন্যারা নিছক পর্দার আড়ালে অন্দরমহলেই নিজেদের আবদ্ধ রাখেননি। মহারাজারাও তাদের শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক মনের বিকাশ ঘটাতে বদ্ধপরিকর ছিলেন। তাদের বিয়েও হয়েছিল শিক্ষিত ও সাংস্কৃতিক চেতনাসম্পন্ন পরিবারগুলিতে। তাই তাদের মধ্যে কুসংস্কার ও ধর্মীয় গোড়ামীর পরিবর্তে উদার মানসিকতা লক্ষ্য করা গেছে। কুচবিহারের রাজকন্যারা দানশীলতা ,বাগ্মিতা, নিষ্ঠাবান ও সামাজিক চেতনা

Enable notifications on latest Posts & updates? Yes >Go to Home Page or Non Amp version Page and \"Allow\"