আঈ মাটি, আঈ ভাষা সংস্কৃতি – চেনো নিজক। ভাস্বতী রায়

লেখাইয়া- ভাস্বতী রায় হবার পাঞ ৫০০ বছর আগোত মোর পূর্ব পুরুষ কোচ জাতীর মানষি আছিল। মেচ ও হবার পাঞ। ধীমাল, থারু, জালিয়া-ও হবার পাঞ। কিন্তু মুই রাজবংশী। কামরূপ কামতা-র ভূমিজা। মোর মৈদ্দে ঐন্য কামরূপী মূলীয় মানষির নাখান কিরাত/মোঙ্গলয়েড প্রভাব আছে। তেমুনে দক্ষিণ ভারতের দ্রাবিড় মানষির নগতো সাংস্কৃতিক মিল আছে। হামার হুদুমার নাখান উমারো আসে মারিয়াম্মা।

পড়ুন উত্তরবঙ্গের রাজবংশী সমাজের ঐতিহাসিক প্রেক্ষিত ও লােকায়ত সংস্কৃতি।

থিসিস পেপারটির বিষয় বস্তু নিচে দেওয়া হল। Online এও পড়তে পারেন । উত্তরবঙ্গের রাজবংশী সমাজের ঐতিহাসিক প্রেক্ষিত ও লােকায়ত সংস্কৃতি ডঃ জিতেশচন্দ্র রায় মহাশয়ের লেখা। Paperback/Hardcover কিনতে চাইলে ক্লিক করুন। ভূমিকা ।  প্রাক কথন পূর্ববর্তী গবেষণার উল্লেখ বর্তমান গবেষণার সীমাবদ্ধতা কৃতজ্ঞতা স্বীকার ।। প্রথম অধ্যায়: উত্তরবঙ্গের রাজবংশী সম্প্রদায় রাজবংশীদের নৃতাত্ত্বিক পরিচয়  রাজবংশী জনগােষ্ঠীর বাসস্থান পরিচয়  রাজবংশীদের

কোচবিহারের রাজপ্রাসাদের যাত্রা পূজা।

কোচ রাজবংশী কামতাপুরী সমাজের যাত্রা পূজা হৈল্ শুভ কাজত শুভ যাত্রার মতন। এই যাত্রা পূজাত বাড়ির সৌগ জিনিসপত্র যেমন নাঙল, জোঙাল, দাও, কাটাই, ইত্যাদি ব্যবহারিক জিনিসের পূজা দেওয়া হয়। এককথায় কওয়া যায় একজন কিষানের জীবিকার জন্যে যে জিনিসগুলা প্রয়োজনীয় সেই জিনিসগুলাক পূজা দেওয়া হয়। খালি চাষের জন্যে দরকারী জিনিস নোমায়, ছাওয়ালার বই, খাতা তারপর যাতায়াতের

কাঠাল পাকলে নাকি রাজবংশীরা বলে “কাঠোল পচি গেইছে” – বক্তা বাঙালি কবি অসীম সরকার

লিখেছেন: তেজস্বী রায়, PhD Scholar, JNU, Delhi “কাঠাল পেকে গেলে বলে পচে গেছে!” – ওনার হিসেবে আমরা পাকা আর পচার মধ্যে তফাতটাও জানি না। “ওরা (পুরুষরা) নেংটি পড়তো আর জাল! পড়তো; মেয়েরা, ওদের অর্ধেক বুক বের হয়ে থাকতো; আর কাপড় পরতে এই পর্যন্ত (অঙ্গভঙ্গিতে হাঁটুর উপর পর্যন্ত দেখিয়েছেন)” – – রাজবংশী সমাজের/সংস্কৃতির/বেশ-ভূসা সম্পর্কে এই সমস্ত

“Tistaparer Brittanto et. al.” and its Conclusion – was it Fair?

The conclusion of Shri Avijit Chakraborty’s PhD thesis “The Social Life Of Tista Based Rajbangshi As Reflected in the Work of Debesh Roy” submitted to Gauhati University in 2013. I have not changed anything about his words. But put some words (Note) at the end. “Conclusion The present study is essentially based on literary creations.

দেওচড়াই এর ঘূর্ণিঝড় – 1963 সাল

📝শ্রী প্রদীপ সিংহ সরকার, দেওচড়াই  Date: 23/10/2019 1963 ইং সনের 19 শে এপ্রিল শুক্রবার ( বাংলা ১৯৭০ সালের ৫ ই বৈশাখ )  দেওচড়াই অঞ্চলের তোর্ষা ,কালজানি ও ঘরঘরিয়া নদীর সঙ্গম স্থল থেকে ভয়াবহ ঘূর্ণীঝর উৎপত্তি হয় । ঝরের প্রচন্ড গতিতে দেওচড়াই অঞ্চলের দেওচড়াই গ্রাম সভার  অংশ , ঝলঝলী গ্রামসভার অংশ , চৌকুশী বলরামপুরের অংশ ,

শিবের বিয়াও – কামতা সংস্কৃতি

This song is about marriage ceremony of Lord Shiva in  Kamtapuri / Rajbanshi Language. শিবের বিয়াও নিয়া এই গান খান্ ল্যাখা হয় কুচবিহারের খাগরাবাড়িত, শিবযজ্ঞের সমায়। কুচবিহারের ডি ভট্টাচার্য গানখান সংগ্রহ করি রাখিছিলেন। সূত্র – Rajbanshis of North Bengal (Dr. CC Sanyal) শিবের আজ বিয়াও ভাইরে আগেয়া যাইরে কৈলাশপুরী বুলি শিবের গায়র ভষ্মগুলা ঝলঝলেয়া জ্বলিয়া

বিষহরি পূজার সমায় “গুয়া পান” এর গান

The song of “Gua – Paan” (betel leaf with areca nut) during Bishohori Puja of Kamtapuri Koch Rajbanshi Culture.

রাজবংশী জন জাতিকে নিয়ে লেখা:রাজবংশী /কামতাপুরী ভাষা।

রাজবংশী জাতির জনজীবন” রোহিত বর্মন উওর পূর্ব ভারতের রাজবংশী জনজাতির একখানা বড়ো বাসস্থান হইল পশ্চিমবঙ্গের উওর বঙ্গ থাকিয়া নিন্ম আসামেও, এমনকি বাংলাদেশকে ও ছাড়ে নাই হামার এই রাজবংশী জন জাতিরা। এই জনজাতির কিছু কিছু মানষি হামার এই জাতি টাক ছিন্নভিন্ন করি রাখিছে। এই জনজাতির বেশি ভাগ মানষি লায় গরিব, এমরা হাল চাষ করিয়া, অন্য মানষির

Enable notifications on latest Posts & updates? Yes >Go to Home Page or Non Amp version Page and \"Allow\"