মহারাজা নৃপেন্দ্র নারায়ণ ভুপ বাহাদুর ও তাঁর কর্মকান্ড।

আধুনিক কুচবিহারের স্রষ্টা মহারাজা নৃপেন্দ্র নারায়ণ ভুপ বাহাদুর পাঁচশত বছরের কোচ রাজত্বের ইতিহাসে দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন তার মহতী কাজের মাধ্যমে। শাসকের আচার-আচরণের  উপর নির্ভর করে রাজ্যের প্রজা মঙ্গলের উন্নতি। প্রজা- হিতৈষী বিদ্যোৎসাহী, সুগভীর কর্তব্যনিষ্ঠ, স্নেহ পরায়ণ এবং  পাশ্চাত্য শিক্ষা ও ভাবনায় কুচবিহার রাজ্যের সর্ববিধ উন্নতি তিনি করেছিলেন। তার আমলে কুচবিহার রাজ্যে উন্নয়নের জোয়ার আসে। তিনি

কুচবিহার রাজপ্রাসাদ / মহারাজা নৃপেন্দ্র নারায়ণ ভুপবাহাদুর।

ঐতিহ্যময় কুচবিহারের রাজপ্রসাদ আমাদের সকলের কাছে একটি অতি পরিচিত স্থাপত্য। মহারাজা নৃপেন্দ্র নারায়ণ ভুপবাহাদুরের স্পর্শধন্য কুচবিহার রাজপ্রাসাদ  অতীতের গৌরবময় মহিমা নিয়ে আজও সমুজ্জ্বল। প্রখ্যাত কথা-সাহিত্যিক প্রবোধকুমার সান্যাল, তার ‘দেবাত্মা হিমালয়’ গ্রন্থে ভারতের পাঁচটি বৃহৎ রাজপ্রাসাদের কথা উল্লেখ করতে গিয়ে লিখেছেন—-“কুচবিহারের রাজবাড়ি…..এরা চোখে স্বস্তি আনে”। বরোদার মহারাজের লেখা ‘The Palaces of India“ গ্রন্থের একটি অধ্যায় জুড়ে

কেন মহারাজা নৃপেন্দ্রনারায়ণ কে আধুনিক কুচবিহারের রুপকার বলা হয়? 

প্রিন্সলি স্টেট হিসেবে কুচবিহার কে বিভিন্ন ঘাত প্রতিঘাতের মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছিল যা এখানকার অধিবাসীদের জীবনে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে প্রভাব ফেলেছিল। এখানকার রক্ষনশীল সমাজ এবং ঐতিহ্যের মধ্যেও রাজনৈতিক এবং অর্থনৈতিক পরিবর্তন হয়েছিল।   মহারাজা নৃপেন্দ্রনারায়ণ কুচবিহার রাজ্যে বিভিন্ন দিকে পরিবর্তন এনেছিলেন এবং বলা চলে আধুনিক কুচবিহারের রুপকার মহারাজা নৃপেন্দ্রনারায়ণই ছিলেন। জন্ম 1862 সালের 4 অক্টোবর।

Enable notifications on latest Posts & updates? Yes >Go to Home Page or Non Amp version Page and \"Allow\"